Please share-

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম

নির্দিষ্ট অংশ পড়তে ক্লিক করুন অথবা পড়া চালিয়ে যান-

০) প্রবন্ধের নাম:

আমি কি একজন জ্বীনমানব?

১) প্রবন্ধ লিখার তারিখ এবং প্রবন্ধের প্রকৃতি ও শিরোনাম:

তারিখ:-  ২৪ এপ্রিল ২০২৩ খ্রি.

প্রবন্ধের প্রকৃতি:- আত্মসমালোচনা মূলক

শিরোনাম:- আমি কি একজন জ্বীনমানব?

২) কী উদ্দেশ্যে প্রবন্ধটি লিখা:

গত ২২ বছর যাবত লক্ষ্য করছি প্রতি রমজানে আমার শরীরে (আরিফ উল্যাহ চৌধুরী, প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক, বন্ধন ফাউন্ডেশন, গোবিন্দপুর, হাজীর বাজার, ফেনী সদর, ফেনী) জ্বীন জাতির ক্রিয়া ব্যাপক ভাবে পরিলক্ষিত হয়। আমি যতটুকু বুঝি অন্য মাসেও এ জ্বীন  আমার শরীরে থাকে; তবে তা সুপ্ত ভাবে। মাঝে মধ্যে আবার অন্যমাসেও ক্রিয়েটিভ হতে দেখেছি।   আমার এ জ্বীনকে তাড়াতে গিয়ে আমার সহায় সম্পত্তি সবই হারিয়ে ফেলতে হয়েছে আমাকে। এটা অবশ্য আমার ভায়েরা করেছে। তবে এখন আর আমি এ জ্বীনকে হারাতে চাই না। আগেও চাইনি। কারণ আমি স্পষ্টই বুঝতে পেরেছি এ জ্বীন গোত্রের উদ্দেশ্য খারাপ নয়।

তাই আমার পরিবার, বংশ, সমাজ, মসজিদের মুসল্লিবৃন্দ, আমার চাকুরির স্থল, বিশেষ করে আমার ছাত্র-ছাত্রী, সহকর্মী সকলের নিকট আমি জানতে চাই আসলেই কি আমি একজন জ্বীনমানব? এ উত্তর খুঁজতে বা মানুষের এ সাপোর্ট পেতে এ প্রবন্ধটি লিখা হয়েছে। এটা বর্তমানে যারা আমাকে চেনেন ও জানেন তারা যেমন কমেন্টস লিখবেন; ভবিষ্যতের যে কোন দিনেও যদি আপনি বুঝতে পারেন যে, আমি জ্বীন মানব তাহলে আপনাকে উদ্দেশ্য করেও এ প্রবন্ধটি লিখা হয়েছে।

(আমি কি একজন জ্বীনমানব?, এ পোস্ট সম্পর্কে কমেন্টস করা যেতে পারে)

৩) এ প্রবন্ধের মাধ্যমে কার বা কাদের উপকার হবে:

যেহেতু জ্বীন জাতি দুনিয়ায় আছে এবং আমি একজন মানব জ্বীন, এ গবেষণাটি আমি নিজের উপর নিজেই পরিচালনা করছি; তাই ধরে নিচ্ছি প্রথমত এর মাধ্যমে আমিই উপকৃত হবো। আবার যেহেতু প্রবন্ধটি বিজ্ঞানীদের বিরুদ্ধে ইসলাম ধর্ম অনুযায়ী জ্বীন জাতি দুনিয়ায় আছে, এ বিষয়টি বিজ্ঞানীদেরকে মানতে বাধ্যকরণ শীর্ষক প্রবন্ধ (যারা মানতে চান না); যেহেতু কোরআনের সত্য প্রতিপাদন এ বিষয়টি সকল মুসলিমেরই কাজ, তাই আমি মনেকরি সকলে যদি পার্টিচিপেট করেন, তাহলে এর মাধ্যমে পুরো মুসলিম উম্মার উপকার হবে।

৪) সারমর্ম:

এ জ্বীনজাতিকে আমার কাছ থেকে তাড়াতে গিয়ে আমার ভায়েরা আমার সহায় সম্পত্তি শেষ করে কার্যত আমায় পঙ্গু করে দিয়েছে। যার কারণে আমার সমাজবাসী ও দেশবাসীদের অনেকে আমাকে অসহায় করে রেখেছে। অতএব  ইহা স্পষ্ট প্রমাণিত যে, এ জ্বীন গোত্রটি আমার কাছ থেকে যাবে না। যেহেতু গত ২২ বছর যায়নি। শতজনের শতবাধা পেরিয়েও থেকে গেছে।

আর তাই আমার বিষয়ে মানুষের অনুভূতি কী তা জানা প্রয়োজন। আসলেই কি জ্বীন জাতিদের কেউ আমার সাথে রয়েছে? বর্তমানে আমি যা বুঝতে পারছি, আমার সাথে থাকা এ জ্বীনের বা জ্বীন গোত্রের উদ্দেশ্য খারাপ নয়। যেহেতু আমি এ জ্বীন গোত্রের উদ্দেশ্য ধরতে পেরেছি; তাই এ মূহুর্তে আমাকে কাজ করতে হলে (আমার কাজ কী তা খুব সহসা জানতে পারবেন) মানুষের কাছ থেকে আমার উৎসাহ প্রয়োজন। আর তাই মানুষগণ আমার বিষয়ে কী ভাবছেন, তা জানতেই আজকের প্রবন্ধটি আমি লিখেছি। আর এতে বর্তমানে আমার পরিচিত জনদেরকে উদ্দেশ্য করে যেমন এ প্রবন্ধটি আমি লিখেছি, ঠিক ভবিষ্যতের যে কোন দিনেও যদি কারো সাথে আমার পরিচয় হয়, তাহলে তাকে উদ্দেশ্য করেও এ প্রবন্ধটি লিখা হয়েছে।

৫) শর্ট ডেসক্রিপশন:

এতোক্ষণে আশা করছি সকলেই বুঝতে পারছেন যে, কেন আমি এ প্রবন্ধটি লিখছি। এর আগেও আমি একই উদ্দেশ্যে অন্য ভাবে, অন্যান্য কন্টেন্ট এর মাধ্যমে বার বার মানুষের প্রতি একই আহবান জানিয়ে ছিলাম। কিন্তু মানুষ গুলো কোন্ এক অজ্ঞাত কারণে লিখতে নারাজ যে, আমি জ্বীন মানব অথবা আমি জ্বীনমানব নই। তাই এবার একেবারে প্রবন্ধের নামই দিয়েছি আমি কি একজন জ্বীনমানব? আশা করছি এবার মানুষ গণ বলবেন তাদের মনের কথা। অন্যান্য কন্টেন্ট এর মধ্যে আমি যুক্তি দিয়ে লিখতে বলেছিলাম যে, কেন আমি জ্বীন মানব, তা বুঝিয়ে লিখতে। হয়তো অনেকে নিজের খেয়ে যুক্তি দিয়ে এতো কথা লিখতে চাইবেন না; এ জন্য এবার আমি বলবো যে, কোন যুক্তি লাগবে না; আপনার যদি মনে হয় যে, আমি একজন জ্বীন মানব বা আমার সাথে জ্বীন আছে, তাহলে যুক্তি দিয়ে অথবা না দিয়ে যে কোন ভাবে হোক আপনি বলুন যে, আমি একজন জ্বীনমানব। তাহলেও অন্তত ভালো লাগবে যে, অমুক আমায় সাপোর্ট দিয়েছে।

আর যদি আপনার কাছে মনে হয় যে, আমি জ্বীন মানব না; তাহলেও দয়া করে তা বুঝিয়ে বলবেন। আসলে মানুষ মানুষকে সহযোগিতা করবে, এ হচ্ছে মানব ধর্ম। কিন্তু আমি দেখলাম যেখানে স্বার্থ নেই, সেখানে আজকের মানুষ কিছু বলতে, বা কিছু করতে একেবারেই নারাজ। প্রয়োজন বিহীন যেন কেউ কারোর খবরই রাখছেনা আজকের দুনিয়ায়। তবে পার্সোনালি আমাকে না চিনলে কোন ধরনের কমেন্টস করার প্রয়োজন নেই। দেখুন, আপনার একটি পজেটিভ কমেন্টস আমাকে অনেক দূর এগিয়ে নিতে সহায়তা করতে পারে।

তাই আশা করছি আমার বংশের মানুষ গুলো, সমাজের মানুষ গুলো আমার ছাত্র-ছাত্রী ভাই ও বোনেরা, আমায় পজিটিভ কমেন্টস করে অনুপ্রাণিত করবেন।

আর যদি কেউই কোন কমেন্টস না দেন, তবে কি আমি বিজ্ঞান ও বিজ্ঞানীদের থেকে জ্বীন বলতে দুনিয়ায় কিছু নেই, এ তথ্যের বিপরীতে জ্বীন দুনিয়ায় রয়েছে এবং আমিই সেই মানবজ্বীন তা স্থালাভিসিক্ত করার যে প্রচেষ্টা তা বন্ধ করে দেবো? আল্লাহ মালিক। জানি না আপনাদেরকে কী খাওয়ালে বা কী দিলে আপনারা হ্যাঁ বা না যে কোন কমেন্টস দিবেন।

(আমি কি একজন জ্বীনমানব?, এ পোস্ট সম্পর্কে কমেন্টস করা যেতে পারে)

৬) ডেসক্রিপশন:

আসলে আমি বুঝতে পারছি প্রতিবারের ন্যায় এবারও জ্বীনের ক্রিয়া রমজান পরবর্তী সময়ে ধিরে ধিরে আমার নিকট থেকে ইনএক্টিভ হচ্ছে। তাই চেষ্টা করছিলাম জ্বীন সংক্রান্ত বাকী যে, কন্টেন্ট গুলো লিখবো মনে করেছি, তা তাড়াতাড়ি শেষ করতে। না হয় জ্বীন থাকা কালিন, যে আকাশচুম্বি নিয়্যাত করেছি ও নিয়্যাতমূলক যে সব প্রবন্ধ লিখেছি তা হয়তো পাবলিস্ট করতে পারবো না। কারণ কখন জানি প্রতিবারের মতো আমি নিজেও ইনএক্টিভ হয়ে যাই!!

প্রতি রমজানে আমি জ্বীন সংক্রান্ত অনেক প্রবন্ধই লিখেছিলাম; কিন্তু রমজান পরবর্তি সময়ে তা ডিলিট করে দিয়েছি। রমজানের সময় বাস্তব মনে হলেও, রমজানের পর মনে হয় এগুলো অবাস্তব। এগুলো বাস্তবায়ন করা, কোন মানুষের পক্ষে সম্ভব না। তবে এ বার কিন্তু ইনশা’আল্লাহ আর ডিলিট করবো না। যেহেতু প্রতিবারে কোন মানবীয় সূত্র পাইনি; কিন্তু এবার আমার বংশীয় পরিচয় ঠিক করেছি। সহসাই আপনাদেরকে জানাবো এ বিষয়ে।

তো কী উদ্দেশ্যে প্রবন্ধটি লিখা তা আপনারা সকলেই বুঝতে পেরেছেন। শুধু আপনাদের থেকে একটু উৎসাহ চাচ্ছিলাম। কমেন্টস দিয়ে এ উৎসাহ আজকে যারা আমাকে চেনেন, তারা যেমন দেবেন; ভবিষ্যতেও যারা আমাকে চিনবেন তারাও এ পোস্টের মাধ্যমে বলবেন আপনার মনের কথা। আবার আমারতো এমন অবস্থা, ব্যবসা-বাণিজ্য দিলেও কাউকে পাইনা; সমিতি খুললেও নিজের সেবা ব্যতিত জনসেবায় তেমন কাউকে পাওয়া যায় না।

দেখুন, বিজ্ঞানের তথ্যকে ভূল প্রমাণিত করে কোরআনের তথ্যকে সঠিক প্রমাণিত করা, ইহা প্রত্যেক মুসলিম নর-নারীরই কর্তব্য। কিন্তু দু:খের বিষয় আমাকে এ পর্যন্ত ওপেনলি কেউ সহযোগিতা করেননি। একটা কমেন্টসও দেননি যে, হ্যাঁ আপনি জ্বীনমানব। আপনি এগিয়ে জান; বিজ্ঞান তার ভূল স্বীকার করতে বাধ্য হবে।

আর কেউ না হোক আমার শিক্ষাঙ্গনের ছাত্র-ছা্ত্রীরাতো অন্তত বলতে পারে!! না তারাও কেন জানি বলছে না। আমিও নিজ থেকে পার্সোনালি কাউকে বলছি না। কারণ রিকোয়েস্ট করলেতো অনেক সময় মানুষ অনেক মিথ্যাকেও সত্য, আর সত্যকেও মিথ্যা হিসেবে বলতে পারে। তাই আমি চাই সম্পূর্ণ নিজ থেকে কমেন্টস করবে। যেই কমেন্টস করুক সম্পূর্ণ নিজ থেকে কমেন্টস করবে; এটিই আমার আশা।

(আমি কি একজন জ্বীনমানব?, এ পোস্ট সম্পর্কে কমেন্টস করা যেতে পারে)

৭) পরিশেষ:

পরিশেষে বলতে চাই, আপনারা কেউই যদি কমেন্টস না দেন, আর এতে আমি যদি উদ্যোমতা হারিয়ে ফেলি; তাহলে এর জন্য আপনারাও দায়ি থাকবেন। কারণ এ বিষয়টি শুধু আমার ব্যক্তিগত নয় যে, ইসলাম বলেছে দুনিয়ায় জ্বীন জাতি রয়েছে। জ্বীন হিসাবে উপস্থিত হয়ে বিজ্ঞানীদের কথাকে মিথ্যা প্রমাণিত করা, এটা সকল মুসলিমেরই দায়িত্ব বলে আমি মনে করি।

তাই শেষবারের মতো আবারো বলছি যারা বর্তমানে আমাকে চেনেন বা ভবিষ্যতে আমাকে চিনবেন, আপনারা একটি কমেন্টস করুন যে, আমি জ্বীনমানব কিনা? অথবা এই বলুন যে আমি জ্বীনমানব নই। তাহলেও অন্তত কিছু না কিছু বললেন!! কিছুই না বললে তাহলে আমি কাদের উদ্দেশ্যে এবং কাকে নিয়ে ও কার জন্যে এ জেহাদ বা গবেষণা পরিচালনা করবো!!

ধন্যবাদ সবাইকে। সবাই ভালো থাকুন। সুস্থ থাকুন । সুন্দর থাকুন। আল্লাহ হাফেজ।

আজকের বাংলা ইংরেজি ও আরবি তারিখ জানতে এবং আজকের পুরো দিনের নামাজ ও রোজার সময়সুচি দেখতে

এখানে ক্লিক করতে পারেন

আবার শুদ্ধরূপে কোরআন তিলাওয়াত শিখতে-

এখানে ক্লিক করতে পারেন